রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:২৮ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
“চ্যালেঞ্জার মুখে কওমী ঐতিহ্য ও আমাদের করণীয়”

“চ্যালেঞ্জার মুখে কওমী ঐতিহ্য ও আমাদের করণীয়”

amarsurma.com

আমার সুরমা ডটকম:

গতকাল কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ কর্তৃক জাতীয় প্রেসক্লাব ভিআইপি গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় পঠিত সংগঠনের লিখিত বক্তব্য।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম
কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত অদ্যকার “চ্যালেঞ্জার মুখে কওমী ঐতিহ্য ও আমাদের করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভার সম্মানিত সভাপতি, প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দ, সংগঠনের সকল পর্যায়ের দায়িত্বশীল, উপস্থিত উলামা, ত্বুলাবা, সুধী শুভানুধ্যায়ী এবং বিশেষত: প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগণ! সকলের প্রতি সংগঠনের পক্ষ থেকে সালাম নিবেদন করছি।
আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহ মাতুল্লাহ
প্রিয় উপস্থিতি!
আপনাদের জ্ঞাতার্থে জানিয়ে রাখছি যে, কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের কার্যক্রম বিগত বেশ কয়েকমাস যাবত চলমান থাকলেও আজ থেকে এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হতে যাচ্ছে ইনশাআল্লাহ।
বক্ষমান নিবন্ধে এই সংগঠনের প্রতিষ্ঠা, প্রেক্ষাপট, প্রয়োজনীয়তা, লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কর্মসূচী সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোকপাত করার চেষ্টা করবো।
কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ কওমী অঙ্গনে দেশের চলমান সংকট, অচলাবস্থা, স্বেচ্ছাচারিতা ও সকল ধরণের অনিয়মের বিরুদ্ধে একটি জাগ্রত আহবান। উম্মাহর আস্থা ও বিশ্বাসের আলোকে তিল তিল করে গড়ে উঠা কওমী মাদ্রাসাসমূহকে সকল প্রকার অনৈতিক কর্তৃত্ববাদ ও ফ্যাসিবাদ, স্বজনপ্রীতির দৌরাত্ম থেকে রক্ষার একটি দীপ্ত প্লাটফরম, যে কোন মূল্যে বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের চিরায়ত জাতিসত্ত্বার নিবিড় সুস্থ সাংস্কৃতিক পরিচর্যা, ধর্মীয় চেতনার বিশুদ্ধ বিকাশ কেন্দ্র, কওমী মাদ্রাসা ও কওমী প্রজন্মকে জাতির সামনে স্বচ্ছ ও নিস্কুলুষ পরিশুদ্ধ রাখার প্রত্যয়ে নিরবচ্ছিন্ন প্রচেষ্ঠায় নিঃস্বার্থ প্রয়াসের একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ। কওমী মাদ্রাসা ও কওমী প্রজন্মের স্বার্থ রক্ষায় যথাযথ সম্মান অক্ষুন্ন রেখে প্রয়োজনীয় সংশোধনী এবং জাতির সামনে শত বছরের কওমী ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখার তীব্র অভিপ্রায় নিয়ে এই সংগঠনের পথচলা।
প্রিয় উপস্থিতি!
আপনারা অবশ্যই অবগত আছেন যে, ১৮৬৬সালের ১লা মে উপমহাদেশের স্বাধীকার আন্দোলন, উম্মাহর আত্ম পরিচয়ের মূল্যবোধের যথাযথ সংরক্ষণ ও শিক্ষা ব্যবস্থার কার্যকরী বিপ্লবের এক ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটকে হৃদয়াঙ্গম করে আল্লামা কাসেম নানুতুবি রহ.সহ ৬জন যুগশ্রেষ্ঠ মনিষি যে দারুল উলূম দেওবন্দের গোড়াপত্তন করেছিলেন, তার আবেদন ও বহুমুখি মহাকল্যাণের দ্যুতিতে আজও গোটা বিশ্ব মহিমান্বিত ও জ্যোতিস্মান।
১৭৫৭সালে মহাবিপর্যয়ের পর উপমহাদেশের ভৌগলিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে দেওবন্দী দর্শনের চেয়ে কার্যকর ও সুদূর প্রসারী, জাতীয় স্বার্থ রক্ষার অতন্দ্রপ্রহরী শক্তিশালী আর কোন চেতনা কেউ উপহার দিতে পারেনি। বালাকোট থেকে রেশমী রুমাল আন্দোলন, সিপাহী বিপ্লব, ফকির মজনুশাহ, তিতুমীরের বাঁশের কেল্লা থেকে ফরায়েজী আন্দোলন, দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে প্রথমে পাকিস্তান, অতঃপর বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা আন্দোলন প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেওবন্দ বা কওমী চেতনারই প্রকৃত ফসল, এটাই ঐতিহাসিকভাবে সত্য ও প্রকাশিত।
প্রিয় সুধীবৃন্দ!
এ কথা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই যে, কওমী চেতনা ও ঐতিহ্য কেবলমাত্র শিক্ষা কারিকুলাম সংশ্লিষ্ট নয়, দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, শিক্ষা-সংস্কৃতি, জাতীয় মূল্যবোধ, ইসলামী শরিয়াহ এর রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চর্চাসহ ব্যাপক ও বহুমুখি চেতনাকে ধারণ করেই কওমী প্রজন্মের আদর্শিক তৎপরতা চলমান।
বাংলাদেশের শিক্ষা-সাহিত্য, সংস্কৃতি, ইসলামী তাহযীব-তামাদ্দুন এর গভীর আন্ত:সংযোগ দেশের তৃণমূল থেকে রাষ্ট্রীয় সকল সর্বোচ্চ স্তরে ইসলাম তথা কওমী চেতনার যথাযথ মূল্যায়ণ ও সম্পৃক্ততাকে কওমী প্রজন্ম আদর্শিকভাবে সবসময়ই গুরুত্বপুর্ণ মনে করে।
সেই শাশ্বত চেতনার আলোকেই আমরা বিরাজমান সংকট ও কওমী ঐতিহ্যের চ্যালেঞ্জকে মুখ্য করে এক সময়োপযোগী ঐতিহাসিক যাত্রার সূচনা করেছি। কওমী মাদরাসাকেন্দ্রিক চলমান সকল সংকট, সমস্যা, নীতি-নৈতিকতার বিষয়ে আমরা গভীর পর্যবেক্ষণ ও প্রয়োজনীয় সংশোধনের কার্যকর তৎপরতা চালাতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকবো ইনশাআল্লাহ।
প্রিয় উলামা ও ত্বুলাবা!
আমরা গভীর পরিতাপের সাথে লক্ষ্য করছি যে, এদেশের হাজারো, লাখো কওমী ছাত্র শিক্ষকের স্বপ্নের প্রতিষ্ঠান আমাদের আকাবির উলামাগণের স্বপ্ন ও ত্যাগের নজরানায় গড়া বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ আজ চোখের সামনে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে।
দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা, দায়িত্বহীনতা, ও জবাবদিহিতাবিহীন এক পূঁতিদুর্গন্ধময় প্রতিষ্ঠানে পরিণত হতে যাচ্ছে আমাদের প্রিয় বেফাক। একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠানে কতিপয় ব্যক্তির অবহেলা, খামখেয়ালী, দায়িত্বহীনতা, স্বেচ্ছাচারিতা একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠানকে কীভাবে ধ্বংস করে দেয় তার নজির সৃষ্টি করতে যাচ্ছে এই বেফাক। অথচ এর সাথে এদেশের লাখো লাখো আলেমের ভালোবাসা, শ্রম, ত্যাগ ও কোরবানী জড়িয়ে আছে।
সচেতন কওমী প্রজন্ম হিসেবে আমাদের এ সকল বিষয়ে নীরব থাকার কোন সুযোগ নেই। এদেশের সকল কওমী সন্তানদের স্বার্থেই এই অরাজকতার বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলা সময়ের অপরিহার্য দাবী। বেফাককে যথাযথভাবে শক্তিশালী করতে কতিপয় দুর্নীতিবাজ ও অযোগ্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনে বাধ্য করতে সকলকে সোচ্চার ও সজাগ হতে হবে।
প্রিয় উলামা ও সুধীমন্ডলী।
আপনাদের এই তথ্য অজানা নয় যে, কওমী উলামাদের এক বৃহৎ প্ল্যাটফরম হেফাজতে ইসলাম, দেশের শীর্ষবিদ্যাপিট, উম্মুল মাদারিস দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী, নাজিরহাট বড় মাদ্রাসাসহ কওমী প্রজন্মের আবেগ ও ভালোবাসার সাথে সংশ্লিষ্ট বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতির দুঃখজনক ও লজ্জাজনক নানাবিধ সংবাদ ও তৎপরতা দৃশ্যমান হচ্ছে। যার বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিবাদ, নিন্দা জানানোর ভাষা নেই। আমরা অনতিবিলম্বে এসব স্থানে তাকওয়াভিত্তিক, আমানতদারিতা ও দায়িত্বশীলতা নিশ্চিত করার দাবী জানাচ্ছি।
এবং আমরা কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ কওমী অঙ্গনের সকল প্রতিষ্ঠান থেকে দুর্নীতিবাজ, দালালচক্র, পদলোভী, অযোগ্যদের অপসারণের জোর দাবী জানাচ্ছি। যোগ্য, মেধাবী, সৎ, বিশ্বস্ত, মুত্তাকী আলেমগণের যথাযথসম্মান ও নিরাপত্তা দিয়ে বেফাক, হাইয়াতুল উলয়াসহ সকল ক্ষেত্রে নেতৃত্ব প্রত্যাশা করছি।
সম্মানিত সুধী!
আমরা পরিস্কার ভাষায় বলছি, কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তি অথবা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আমাদের কোন ক্ষোভ নেই, আক্রোশ নেই। আমরা বিশেষ কারো পক্ষে অবস্থান নিতে রাজি নই। তবে আমরা সকল যোগ্য, মেধাবী, কর্মক্ষম আলেমদের পক্ষে কথা বলতে দ্বিধা করবো না এবং যে কোন স্বেচ্ছাচারি, দুর্নীতিবাজ, অযোগ্যদের বিরুদ্ধে কথা বলতে পিছপা হবো না।
আমরা চাই, কওমী প্রজন্ম নিরাপদ থাকুক, কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ কওমী মাদ্রাসাসমূহকে সকল প্রকার রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রন, ব্যক্তি বিশেষের অনাকাঙ্খিত একচ্ছত্র প্রভাব থেকে মুক্ত রাখতে কাজ করবে ইনশাআল্লাহ।
পরিশেষে কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদের প্রতিষ্ঠা, লক্ষ্য, কর্মসূচী ও সকল তৎপরতার সাফল্য কামনা করে মহান আল্লাহর নুসরাত ও সকলের দোয়া চেয়ে এবং সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেষ করছি। মহান আল্লাহ সংশ্লিষ্ট সফলকে উত্ত্ম প্রতিদান দান করুন।
জাতীয় প্রেসক্লাব: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০ কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ এর ৫দফা দাবী:
বর্তমান কওমী মাদ্রাসার ঐতিহ্যের জায়গাগুলো আজ প্রশ্নবিদ্ধ। নানাপ্রকার বিতর্কে জর্জড়িত। এহেন অবস্থায় কওমী ঐতিহ্য সংরক্ষণ পরিষদ আজকের আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশের দিনে কওমী মাদ্রাসার শীর্ষস্থানীয় সকল মুরুব্বিদের উদ্দেশ্যে ৫ দফা দাবী পেশ করছি।
১। স্যোসাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে কওমী উলামাদের গর্বের জায়গা বেফাক সম্পর্কে যে সকল অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে, তা অতিসত্ব্রর তদন্ত সাপেক্ষে সঠিক বিষয়টি জাতির সামনে উপস্থাপন করতে হবে।
২। বেফাক এবং হাইয়াতুল উলয়াতে সকল প্রকার একক সিদ্ধান্ত গ্রহনের অপসংস্কৃতি বন্ধ করে শুরা ভিত্তিক সকল সিদ্ধান্ত গ্রহনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।
৩। দ্রুততম সময়ের মধ্যে বেফাক এর সকল প্রকার পরিচালনা কমিটি আমেলা ও শুরা মিটিং ডেকে নতুন করে গঠন করতে হবে এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের যথাযথ নিয়োগবিধি অনুসরণ করে নিয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। যার যার দায়িত্ব সঠিকভাবে পরিচালনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। বেফাক থেকে সকল প্রকার তথ্যপ্রাপ্তি নিশ্চিত করতে হবে।
৪। বেফাক এর সকল প্রকার আর্থিক লেন-দেন, পরীক্ষা পরিচালনা কার্যক্রমকে দূর্নীতি ও অনিয়মমুক্ত করতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে।
৫। বেফাক এর সকল পরিচালনা কমিটি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সুনির্দিষ্ট বয়স নির্ধারণ করতে হবে।
অবিলম্বে উক্ত দাবীসমূহ বাস্তবায়ন না হলে এদেশের আলেম-উলামা ও ছাত্রজনতাকে সাথে নিয়ে রাজপথে নামতে বাধ্য হবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: