রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
জামালগঞ্জে কেউ প্রহর গুনে, কেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পার হয় নদী!

জামালগঞ্জে কেউ প্রহর গুনে, কেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পার হয় নদী!

মোঃ আবুল কালাম জাকারিয়া: জামালগঞ্জ-সাচনা বাজারের উপর দিয়ে যে নদীটি বয়ে গেছে তার নাম সুরমা নদী। প্রতিদিন হাজারো মানুষ পাড় হয় এ নদী দিয়ে। এ পাড়ের মানুষ ওপারে যায়। আর ওপারের মানুষ এপারে আসে। এই যাওয়ার একমাত্র বাহন দেশীয় নৌকা। নৌকা করে পার হতে হয় এ নদীটি। নদীটির কাছে গিয়ে সরেজমিনে দেখা গেছে, এর আয়তন প্রায় ৪০০ গজ। এ বিশাল নদীটি পাড় হওয়ার জন্য রয়েছে মাত্র দুটি খেয়া। নৌকা পারাপারকে এখানের আঞ্চলিক ভাষায় খেয়া বলা হয়। এ খেয়া ছাড়া সে অঞ্চলের মানুষের অন্য কোনো পথ নেই পারাপারের। তাই তারা একটি নৌকা নিয়ে গেলে আরেকটি নৌকার জন্য অপেক্ষা করতে হয়। আর নদীটির মাধ্যমে দু’পাড়ের মানুষের একটি গভীর সম্পর্ক তৈরি হয়ে গিয়েছে। ধারণা করা হয়, পরস্পরে আন্তরিকতা থেকেই আদি যুগে নদীর দু’পাড়েই মানুষ বসবাস করে। ফলে স্কুল-কলেজ গড়ে উঠেছে একপাড়ে। ওপারের শিক্ষার্থীরা এ নদী পাড় হয়েই যায় স্কুল বা কলেজে। সরেজমিনে দেখা গেছে, একটি নৌকায় শ’খানেক যাত্রী। মাঝি অনেক কৌশল করে নৌকাটি পাড়ে ভিড়ানোর চেষ্টা করছেন। নৌকাটি ডুবু ডুবু প্রায়। সামান্য একটু নড়াচড়া হলেই যে নৌকাটি ডুবে যাবে সে কথা নিশ্চয়। আর যদি ডুবেই যায় কখনো তাহলে আমরা সলিল সমাধির সংবাদ পাবো-এইটাতো নিশ্চিত!
তাহলে…? নৌকারোহীরা কিন্তু সাধারণ যাত্রী নয়। তারা স্কুলের শিক্ষার্থী। নৌকায় বসার কোনো জায়গা নেই। যাত্রীদের কারণে দাঁড়ানোর ঠায় নেই। তারা দণ্ডায়মান। অবস্থাটি চরম ঝুঁকিপুর্ণ। আর এই অবস্থা নাকি যুগ যুগ থেকে চলমান। প্রতিবছর নির্বাচনে দাঁড়ানোর পূর্বে এমপি, মন্ত্রী ও চেয়ারম্যানরা স্বপ্ন দেখান। তারা আশ্বাস দেন। অনেক আশ্বাস আছে। স্বপ্নও আছে। কিন্তু বাস্তবতা বড়ই নিষ্ঠুর। সবাই নাকি কথা দেন কিন্তু কেউ কথা রাখেন না। বাংলাদেশ সরকার বহু আগে থেকেই বলে আসছেন, দেশের কোথাও কোনো মানুষের কষ্ট রাখবো না। আমরা মানুষের যাতায়াতের সুবিধা বাড়াবো। সরকার তার প্রতিশ্র“তি অনেকটা বাস্তবায়নের পথে। দেশে ফ্লাইওভার হচ্ছে অনেক। ওভারব্রিজও হচ্ছে প্রচুর। জামালগঞ্জ-সাচনাবাজার এলাকাবাসির দাবি সরকারের প্রতি। সরকার মহাশয় যদি এখানে একটি ব্রিজ করার উদ্যোগ নেন। তাহলে এ এলাকার মানুষের যাতায়াতের সু-ব্যবস্থা হবে। সহজে স্কুলে যেতে পারবে এপাড়ের শিক্ষার্থীরা। উন্নত হবে দেশ-জাতি ও সমাজের। শোনা যাচ্ছে এ ব্রিজ হওয়ার ম্যাপ আলোচনা চলছে তবে প্রশ্ন-হলো বাস্তবায়ন হচ্ছে কবে? এমপি সাহেবও বলছেন ব্রিজ হবে। তবে জনগণের প্রশ্ন হচ্ছেটা কবে?

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: