শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:১১ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
তুরস্কে জি-২০ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার না দেয়ার নিন্দা

তুরস্কে জি-২০ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রবেশাধিকার না দেয়ার নিন্দা

g-20_103660আমার সুরমা ডটকম ডেক্স : তুরস্কের বিরোধী সংবাদমাধ্যমগুলোকে দেশটিতে অনুষ্ঠিতব্য জি-২০ সম্মেলনের খবর সংগ্রহের অনুমোদন দিতে সরকারের ব্যর্থতার নিন্দা জানিয়েছে ওয়ার্ল্ড এসোসিয়েশন অব নিউজপেপার এন্ড নিউজ পাবলিশার্স (ডব্লিউএএন-আইএফআরএ) ও ওয়ার্ল্ড এডিটর্স ফোরাম (ডব্লিউইএফ)। এ সংগঠন দু’টি বিশ্বব্যাপী প্রায় ১৮ হাজার প্রকাশনা, ১৫ হাজার অনলাইন সাইট ও ৩ হাজারেরও বেশি কোম্পানির প্রতিনিধিত্ব করে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠন দু’টি বলেছে, তুরস্কে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা খর্ব হওয়ার সর্বশেষ উদাহরণ এটি। সেখানে বলা হয়েছে, বিভিন্ন প্রতিবেদন মোতাবেক, তুরস্কের ক্ষমতাসীন জাস্টিস এন্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির নেতৃত্বাধীন সরকারের সমালোচক বলে পরিচিত কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমকে ১৫-১৬ নভেম্বর তুরস্কের আন্তাল্যায় অনুষ্ঠেয় জি-২০ সম্মেলনের খবর সংগ্রহের অনুমতি দেয়া হয়নি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও ডিরেক্টরেট জেনারেল অব প্রেস এন্ড ইনফরমেশন (বিওয়াইইজিএম) থেকে প্রায় মাস খানেক আগে বেশিরভাগ গণমাধ্যম অ্যাক্রিডিটেশন (অনুমতি) পেয়েছে। কিন্তু জামান ডেইলি, টুডে’স জামান, দ্য সিনহ্যান নিউজ অ্যাজেন্সি, দৈনিক সোযচু, সামানয়োলু টিভিকে এখনো অ্যাক্রিডিটেশন দেয়া হয়নি। আরেকটি বিরোধী সংবাদমাধ্যম দ্য তারাফ ডেইলি অ্যাক্রিডিটেশনের জন্য আবেদনই করেনি। কারণ, যেসব অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীরা উপস্থিত থাকেন, সেগুলোতে এ পত্রিকার প্রতিবেদকের উপস্থিতির ওপর এমনিতেই নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। অ্যাক্রিডিটেশনের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে, বিওয়াইইজিএম সাংবাদিকদের জানায়, তাদের অ্যাক্রিডিটেশনের আবেদন বিবেচনাধীন রয়েছে। অথচ সম্মেলন শুরু হতে আর মাত্র চার দিন বাকি। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ডব্লিউএএন-আইএফআরএ ও ডব্লিউইএফ উদ্বিগ্ন যে, তুর্কি সরকার হয়তো সাংবাদিকদের অ্যাক্রিডিটেশনকে সেন্সরশিপের একটি উপায় হিসেবে ব্যবহার করছে। নিজেদের সম্পাদকীয় মতামতের শাস্তি হিসেবে ব্যাপকভাবে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গুরুত্বসম্পন্ন অনুষ্ঠানের খবর সংগ্রহ করতে গণমাধ্যমের প্রবেশাধিকার বন্ধ করা উচিৎ নয় কোনো সরকারের। এমনটি করে, সরকার সাংবাদিকদের কাজ করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে। জনগণের স্বার্থে তথ্যের অবাধ প্রবাহ বাধাগ্রস্থ করছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, এর আগেও তুর্কি সরকার গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করেছে। একেবারে সম্প্রতি বুধবার জামান মিডিয়া গ্রুপের কার্যালয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। জামানের সাবেক প্রধান সম্পাদককে গ্রেপ্তারের দাবি উঠিয়েছেন এক সরকারি কৌঁসুলি। ডব্লিউএএন-আইএফআরএ ও ডব্লিউইএফ তুর্কি প্রেসিডেন্টকে সাম্প্রতিক কয়েক মাসে বেশ ক’বার চিঠি লিখে বিভিন্ন বিষয়ে নিজেদের উদ্বেগের কথা প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে দৈনিক হুরিয়েত ও এর কর্মীদের ওপর বেশ কয়েকটি সহিংস হামলা ও ভীতি প্রদর্শন, জঙ্গি সংগঠন আইএসকে সহায়তার দায়ে ভাইস নিউজের দুই বৃটিশ সাংবাদিক ও তাদের অনুবাদককে আটক এবং দৈনিক বুগুনের এক কলামিস্টকে ‘সরকার উৎখাতের চেষ্টার’ দায়ে আটকের বিষয় ছিল উল্লেখযোগ্য। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ডব্লিউএএন-আইএফআরএ ও ডব্লিউইএফ দাবি জানিয়েছে, জি-২০ দেশগুলোর আসন্ন সম্মেলনে তুরস্কে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিতের বিষয়টি সব গণতান্ত্রিক দেশের আলোচ্য বিষয় হতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: