রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:৪৭ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
দারুল উলূম দেওবন্দ বিশ্বে আলোর মিনার—শায়েখ ডক্টর সালেহ

দারুল উলূম দেওবন্দ বিশ্বে আলোর মিনার—শায়েখ ডক্টর সালেহ

dআমার সুরমা ডটকম ডেক্সপবিত্র কাবা শরীফের ইমাম ও খতীব শায়েখ ডক্টর সালেহ বিন ইবরাহীম আলে তালেব দেওবন্দের মসজিদে রশীদে এক ভাষণে বলেন, ‘ইসলামের উপর চারদিক থেকে বাতিলের আঘাত, আক্রমণ, উম্মাহর ঐক্যের মাধ্যমেই তার প্রতিরোধ করা সম্ভব৷ মুসলমানের আখলাকে হাসানা ও উত্তম চরিত্রের মাধ্যমে বিশ্ব জয় করতে পারে৷ ইসলাম শান্তির পয়গামবাহী৷ সন্ত্রাসের সাথে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই৷ সন্ত্রাসবাদ ও ইসলাম বিপরীত মেরুর বিষয়। তিনি আরও বলেন, দারুল উলূম দেওবন্দ শুধু ভারত নয, সমগ্র বিশ্বে আলোর মিনার৷ দেওবন্দের উলামায়ে কেরাম বিস্ময়কর ইলমী খিদমত করে যাচ্ছেন৷ এই আলো ছায়ায় বিশ্ব আলোকিত৷ পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে এই আলোর প্রভাব পৌঁছেছে৷ তিনি আরও বলেন, তার মাযহাবের ইমামগন হক, সত্যের প্রতীক, বরণীয় ও সম্মানিত। হারামাইন শরীফাইনে চার মাযহাবের শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ হানাফী ফিকহের উপর সৌদি উলামায়ে কেরাম গুরুত্বপুর্ণ ইলমী কাজ করেছেন৷ মৌলিক আকিদা বিশ্বাসে এবং দীনের মৌলিক বিষয়ে মুসলিমদের মাঝে বিরোধ নেই৷ শাখাগত বিরোধ সাহাবায়ে কেরামের সোনালী যুগ থেকেই চলে আসছে৷ এই বিরোধ, এই ইখতিলাফ উম্মাহর জন্য রহমত স্বরুপ৷ উম্মাহর পশ্চাদপদতা, অবক্ষয় ও অবনতির মূল কারণ কুরআন ও সুন্নাহ থেকে দূরে থাকা এবং গুরুত্ব না দেওয়া৷ এই দূরত্বের কারণে কিছু নামধারী মুসলিম চিন্তার বিভ্রান্তির শিকার৷ মতবিরোধ এই কারনে৷ ‘কোনো কোনো সন্ত্রাসী গ্র“প ইসলামের নামে সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত এদের সাথে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই৷ মুসলিম উম্মাহ বিধ্বস্ত ও বিপর্যয়ের শিকার বর্তমানে৷ নিজেদের মাঝে ছোট খাটো বিষয় নিয়ে বিরোধে জড়িত হবার সময় নয় এখন৷ ফেরকাবন্দি থেকে আমাদের দূরে থাকতে হবে৷ ইসলামের নামে গ্র“প গঠন থেকে বেঁচে থাকতে হবে৷ উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্য সময়ের দাবী৷ আমাদের ফিরে যেতে হবে কুরআন ও সুন্নাহর পথে৷ ইসলামকে জীবনের টার্গেট বানাতে হবে৷ লক্ষ্য ইসলামের বিজয়৷ তিনি আরও বলেন, মুসলিমরা কোনো অবস্থাতেই হতাশ হওয়া যাবেনা৷ ইসলামে অটল-অবিচল থাকতে হবে৷ আখলাক ও আমাল দ্বারা বিশ্বের কাছে ইসলামের পরিচয় তুলে ধরতে হবে৷ আগামী দিন ইসলামেরই, ভবিষ্যৎ উজ্বল৷”

এদিকে শায়েখ সালেহ আলে তালেব দারুল উলুম দেওবন্দে জুহরের নামাযের ইমামতি করেন৷ মসজিদ ও মসজিদের বাইরে হাজারো মুসল্লির উপচেপড়া ভীড় হয়৷ পবিত্র কাবার ইমাম ও খতীবকে এক নজর দেখার জন্য হাজার হাজার জনতা সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে থাকে৷ তিনি দারুল উলূম দেওবন্দের শীর্ষ আলেমদের সাথে মতবিনময় করেন৷ রাজকীয় সংবর্ধনা দেওয়া হয় দেওবন্দে৷ প্রকাশ করা হয় ভালোবাসার বিরল দৃষ্টান্ত৷ অভাবনীয় এক দৃশ্যের অবতারনা হয় দেওবন্দে৷ তিনি আল্লামা সাইয়েদ আরশাদ মাদানীর সাথে দেওবন্দে আগমন করেন৷ ফুলের মালা জড়িয়ে লালগালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয় দেওবন্দে৷ স্বাগত ভাষণ দেন দেওবন্দের নায়েবে মুহতামিম মাওলানা আব্দুল খালেক মাদরাজী৷ শায়েখ সালেহ আলে তালেবের ভাষণ অনুবাদ করেন মাওলানা শওকত আলী বস্তবী৷
দারুল উলুম দেওবন্দ পরিদর্শন শেষে তিনি মন্তব্য খাতায় লিখেন, দারুল উলুম দেওবন্দের খ্যাতি বিশ্বের চারদিকে৷ তার সুখ্যাতি বিশ্বময়৷ তার ইলমী খেদমতের প্রভাব পৃথিবীর প্রান্তে প্রান্তে৷ দেওবন্দের উলামায়ের কেরাম এবং তাদের রচনাবলীর প্রভাব বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে আছে৷ দেওবন্দের ইলমের আলো সময় ও সীমানা ছাড়িয়ে কালোত্তীর্ণ৷
উল্লেখ্য, পবিত্র কাবার ইমাম ও খতীব শায়েখ সালেহ আলে তালেব এক সপ্তাহের এক সফরে ভারতে অবস্থান করছেন৷ তাঁর সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন শায়েখ আব্দুল মুহসিন আলে তালেব, শায়েখ ফাহাদ কাহতানী, শায়েখ আহমদ আলী রুমী। সূত্র: ইন্টারনেট, অনলাইন পত্রিকা (উর্দু) কপিকৃত, (ফয়সল আহমদ-এর পোস্ট থেকে)।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: