রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
দিরাইয়ে আপন বোন হত্যার দায়ে ভাই গ্রেফতার

দিরাইয়ে আপন বোন হত্যার দায়ে ভাই গ্রেফতার

আমার সুরমা ডটকম : দিরাইয়ে আপন বোন সালমা বেগম (২৫) হত্যার দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে বড় ভাই মোশাহিদকে (২৮)। এ ঘটনায় শোকে কাতর হয়ে গেছেন পরিবারের একমাত্র ব্যক্তি পিতা ডাঃ আজিজুর রহমান। প্রায় ৪ মাস আত্মগোপনে থাকার পর দিরাই থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৬ ডিসেম্বর গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করে। মোশাহিদের পিতা আজিজুর রহমান জানান, প্রায় ৪ মাস আগে বাড়িতে গিয়ে মেয়েকে না পেয়ে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলে মোশাহিদ জানায়, খোঁজ করে দেখ; আমিও দেখছি। এরপর অনেক খোঁজ নিয়ে মেয়েকে না পেয়ে অবশেষে দিরাই থানায় একটি জিডি করি। জিডি নং-৯৭২, তারিখ-২৪/০৮/২০১৫ খ্রিস্টাব্দ। তিনি অভিযোগ করে বলেন, এ ঘটনার পর পুলিশ তাকে আটক করলেও মেয়েকে বের করে দেয়ার শর্তে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তাকে ছেড়ে দিয়েছে বলেও জানান। তারপর থেকে আর কোন সন্ধান পাইনি মোশাহিদের।
জানা যায়, সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার পৌরসভার ভরারগাঁও গ্রামের গ্রাম্য ডাক্তার ও দিরাই বাজারের ব্যবসায়ি আজিজুর রহমানের পরিবারে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলছে। তার এক মেয়ে সালমা বেগমকে একই গ্রামের সুমন মিয়ার সাথে বিয়ে দেন প্রায় ৫ বছর আগে। তবে বেশি দিন সংসার করতে পারেনি সালমা। স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়াতে তালাক নিয়ে পিত্রালয়ে চলে আসে। এরপর থেকেই পিতার সংসারে মরিয়ম জাহান মিম (৩) নামে ৩ বছরের একটি মেয়েকে নিয়ে বসবাস করে আসছে।
আজিজুর রহমান জানান, প্রায় দেড়বছর আগে মোশাহিদকে জেলার ছাতক উপজেলার জাউয়া এলাকার একটি গ্রামে পারিবারিকভাবে বিয়ে করান। গত কয়েকদিন আগে পুত্রবধুর পিতার বাড়িতে একটি মেয়ে সন্তানও হয়েছে। তিনি আরো জানান, পরবর্তীতে সে আরেকটি বিয়ে করেছে আমাদেরকে না জানিয়ে। আমরা তা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারিনি বলে আমার মেয়ের সাথে প্রায়ই ঝগড়া করতো।
একটি বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, মোশাহিদের বোন তালাকপ্রাপ্ত হওয়ার পর উচ্ছৃঙ্খল জীবন-যাপন করতে থাকে। প্রায়ই সালমা বিভিন্ন ছেলেদের নিয়ে বাজে আড্ডা মারত। এ নিয়ে বোনের সাথে প্রায়ই মোশাহিদের ঝগড়া হতো। তাছাড়া মোশাহিদের বিয়ের পর থেকেই তার স্ত্রীর সাথে বোনের ঝগড়া লেগেই থাকতো। এ নিয়ে পারিবারিকভাবে অনেক সালিশ বৈঠকও হয়েছে। এরপরও সঠিক সমাধান না হওয়াতে মোশাহিদের স্ত্রী তার পিতার বাড়িতে চলে যায়। এসব নিয়ে মোশাহিদ বোনের ওপর চরমভাবে ক্ষিপ্ত ছিল বলে সূত্রটি দাবি করে। আর সেই ক্ষোভের বহি:প্রকাশ ঘটিয়েছে আপন ছোট বোনকে হত্যা করে গুমের মাধ্যমে।
সূত্র মতে, একমাত্র ছেলে মোশাহিদ মিয়াও তার পিতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দিরাই বাজারের জমজম হোটেলের সামনে একটি দোকানে পিতার সঙ্গে ব্যবসা করতো। গত ঈদুল ফিতরের আগে তা মাতা মারা যাওয়ায় বাড়ি একেবারে খালি থাকায় সে এটিকে সুযোগ বুঝেই বোনকে হত্যার পরিকল্পনা করে। তবে সে একা না আরো কেউ তার সাথে ছিল, রিমাণ্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসা করলেই তা বেরিয়ে আসবে বলে এলাকাবাসি দাবি করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চলছে শোতের মাতম।
দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিছুর রহমান জানান, মোশাহিদের পিতার আবেদনের প্রেক্ষিতে তদন্ত করে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে ঢাকার গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ ব্যাপারে একটি মামলা দায়ের করেছেন আজিজুর রহমান। মামলা নং-০৩, তারিখ-০৬/১২/২০১৫ খ্রিস্টাব্দ। তিনি আরো জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে বোন হত্যার কথা স্বীকার করায় গতকাল সোমবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং আদালতের নির্দেশক্রমে লাশ উত্তোলনের ব্যবস্থা করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: