শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:১১ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
‘ফোরজি চাই না, ভালো মানের থ্রিজি দিন’

‘ফোরজি চাই না, ভালো মানের থ্রিজি দিন’

আমার সুরমা ডটকমআজ থেকে প্রায় ৬ বছর আগে দেশে চালু হয়েছিল তৃতীয় প্রজম্মের ইন্টারনেট থ্রিজি। সবার আশা ছিল সেবাটা আশানুরূপ হবে, কিন্ত না, আশানুরূপ সেবা মিলেনি টেলিকম সেক্টরের কাছ থেকে। তবে তাদের ব্যবসা রমরমা। থ্রিজিতে গ্রাহকের আস্থা তৈরি না করতে পারলেও, টেলিকম প্রতিষ্ঠানগুলো বলছে এবার ফোরজি দিয়ে তা পূরণ করবে। তাই তো টেলিকম প্রতিষ্ঠাগুলো মুখিয়ে ছিল ফোরজি চালুর অপেক্ষায়। তাদের অপেক্ষার পালা শেষ হয়েছে গত ১৯ ফ্রেরুয়ারি সরকার দেশে অনুষ্ঠানিকভাবে ফোরজি চালু করেছে। সরকারের ফোরজি চালুর দিনই বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক ও গ্রামীনফোন তাদের ফোরজি সেবা চালু করেছে।

এদিকে ফোরজি চালুর পর থেকেই দেশে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। গ্রাহক বলছে ফোরজি তো দূরের কথা আগে আমাদের থ্রিজি দিন। তাদের অভিযোগ, আগে থ্রিজি স্পীডের গতি না পেলেও কাজ করা যাচ্ছিল। ফোরজি চালু হয়ে এখন থ্রিজিও পায় না, এখন সেটা টুজিতে চলে গেছে।

থ্রিজি চালুর পর মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী সবার মাঝে একটা আগ্রহ ছিল, যা ফোরজি চালুর পর দেখা যাচ্ছে না। তারা বলছে, ফোরজি বলতে কিছুই নেই, সব লোক দেখানো। আর কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া। আগে থ্রিজি দিতে বলেন, তারপর আমরা ফোরজিতে যাবো।

ফোরজিতে আসছে তাই গ্রাহকে টাকার বিনিময়ে সিম রিপ্লেসমেন্ট করতে হবে। অনেকেই তা করেও ফোরজি পাচ্ছে না। তাছাড়া ঢাকার অনেক জায়গায় ফোরজি পাওয়া যাচ্ছে না। তাহলে গ্রাম অঞ্চলে তো ফোরজির প্রশ্নই আসে না।

ভুক্তভোগীরা আরো অভিযোগ করেন, শুধুমাত্র ঢাকার গুলশান ও বনানীতে ফোরজি দেখাচ্ছে।

প্রযুক্তি গবেষকরা বলছেন, একটি দেশকে উন্নত করতে হলে, তার দেশের গ্রাম অঞ্চলগুলোকে আধুনিক করতে হবে। এই দেশের অধিকাংশ মানুষ গ্রামে থাকে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এখনো ইন্টারনেটের সুবিধা নেয়। শুধু ইন্টারনেট না, নেই ভালো মোবাইল নেটওয়ার্ক। গ্রামের মানুষ চায় ভালো মানের থ্রিজি সেবা, তারা ফোরজি চায় না।

বর্হিবিশ্বে থ্রিজির গড় স্পীড ২০ এমবিপিএস বাংলাদেশে স্পীড ৩ দশমিক ৭৫ এমবিপিএস। এতেই বুঝা যায় আমরা ইন্টারনেটের দুনিয়ায় কোথায় আছি। সদ্য চালু হওয়া ফোরজি গতি হবে ৭ এমবিপিএস। তা পৃথিবীর অন্যন্যা দেশের থ্রিজির তুলনায় কম।

ঢাকার একটি কলেজে পড়েন আলামিন হাওলাদার। তিনি রবি ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। তিনি দুঃখ করে বাংলা ডট রিপোর্টকে বলেন, ‘রবি বলছে তারা ফোরজি না, তারা ৪.৫ জি দিচ্ছে। যেখানে দেশের সব অপারেটরগুলো ফোরজি চালু করলো, সেখানে তারা কিভাবে সাড়ে ফোরজি দেয়? তারা তো ঠিকভাবে থ্রিজিতেই নাই। ফোরজি চালুর পর তাদের ইন্টারনেট টুজি চলে আসছে। রবি বলছে দেশের ৬৪ জেলায় পৌঁছে গেছে ৪.৫ জি। আমি তো ঢাকাতেই ফোরজি পাচ্ছি না। আসলে রবি কি তাদের নাম পৌঁছে দিচ্ছে নাকি নেটওয়ার্ক, কোনটা?’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর এলাকার থাকেন হিমেল। তিনি বলেন, ‘বাংলালিংক নাকি ফোরজি নিয়ে আসছে। তাদের তো মোবাইল নেটওয়ার্কই পাই না এলাকায়। আগে নেটওয়ার্ক দেন তারপর না হয় ফোরজি নিবো।’

সরকারি তিতুমীর কলেজে অনার্সে পড়েন টুটুল, তিনি বলেন, ‘আমরা ফোরজি চাই না, আগে ভালো মানের থ্রিজি দিতে বলেন। তাতে অন্তত গ্রামে থাকা মাকে ভিডিও কলের মাধ্যমে দেখতে পারবো। বাহিরের দেশ থেকে বন্ধুরা ফোন করে, তাদের সাথে ভিডিও কলে কথা বলি। বাড়ির কারো সাথে কথা বলতে পারি না, ইন্টারনেট সমস্যা।’ বর্তমান বিশ্বে ৯৫টি দেশে থ্রিজি চালু আছে তার মধ্যে গতির দিক দিয়ে বাংলাদেশ হচ্ছে ৮৪তম।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: