শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:১৮ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
‘বাবরি মসজিদ ভাঙ্গা ঠেকাতে না পারা বড় ধরনের ব্যর্থতা’

‘বাবরি মসজিদ ভাঙ্গা ঠেকাতে না পারা বড় ধরনের ব্যর্থতা’

index_114442আমার সুরমা ডটকম ডেক্স : ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী পিভি নরসিমা রাওয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি বলেছেন, বাবরি মসজিদ ভাঙ্গন রোধে জাতির প্রধান ব্যক্তি হিসেবে তখনকার প্রধানমন্ত্রী বড় ধরনের ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন।
হিন্দুস্তান টাইমসের মতে, প্রণব মুখার্জির স্মৃতিকথার দ্বিতীয় খণ্ডে ১৯৮০ থেকে ৯৬ সালের উত্তাল দিনগুলো সম্পর্কে বলা হয়েছে, এই স্মৃতিকথায় একজন ভেতরের লোক হিসেবে সে সময়ের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা তুলে ধরেছেন রাষ্ট্রপতি। তাতে তিনি নির্লিপ্তভাবে তুলে ধরেছেন, এই মসজিদের ভাঙ্গন ভারত ও প্রবাসী মুসলমানদের মনে কতোটা ক্ষত তৈরি করেছে।
স্মৃতিকথায় তিনি লিখেছেন, ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর আমি মুম্বাইতে ছিলাম। আমি যখন দুপুরের খাবার খাচ্ছিলাম তখন প্ল্যানিং কমিশনে কর্মরত আমার অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি জয়রাম রমেশ আমাকে ফোন করে জানালেন যে বাবরি মসজিদ ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। আমি কি শুনছি তা বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। সুতরাং তার কাছে আবার আমি জানতে চাইলাম পুরো মসজিদের কতটুকু ভাঙ্গেছে। তিনি অত্যন্ত ধৈর্য্য নিয়ে আমাকে পুরো ঘটনা বর্ণনা করলেন। সেদিন বিকেলেই আমার দিল্লি ফিরে যাওয়ার কথা। কিন্তু লক্ষ্য করলাম মুম্বাইতে এ নিয়ে বেশ উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রসচিব ফোন করে আমার কাছে জানতে চাইলেন আমার জন্য নিরাপত্তারক্ষী ঠিক করা আছে এবং একটি গাড়িও তৈরি আছে। কারণ বিমানবন্দরে যাওয়ার পথটা কিছু স্পর্শকাতর এলাকার মধ্য দিয়ে গিয়েছে। আমি বিমান বন্দরের দিকে রওনা দিলাম। গাড়ির সামনে রয়েছে পুলিশের একটি জীপ। পেছনের গাড়িতে রয়েছে সাদা পোশাকের পুলিশেরা। একজন নিরাপত্তাকর্মী আমার গাড়িতেই বসলেন। পথেই দেখলাম আইনজীবী রাম জেথমালানীকে। তিনি ইঙ্গিতে আমার দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করলেন। আমি গাড়ি থামালাম। তাকে আমার সঙ্গে নিলাম, যাতে তিনিও পুলিশের নিরাপত্তা পান। আমি যখন বিমান বন্দরের দিকে যাচ্ছিলাম তখন দেখলাম ছোট ছোট গ্রুপে বেশ কিছু লোক রাস্তার মোড়ে মোড়ে জড়ো হয়েছে। আরও দেখলাম রাস্তার উপর ইট-পাথর পড়ে আছে। মনে হলো আমরা এখানে পৌঁছার আগেই কিছু সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরদিন পত্রিকায় দেখলাম আমার অনুমান সঠিক ছিল। বাবরি মসজিদ ভাঙ্গাটা ছিল এক ধরনের বিশ্বাসঘাতকতা, যা ভারতীয়দের মাথা লজ্জায় অবনত করে। এটা ছিল নির্বোধের মতো একটা কাজ এবং উচ্ছৃংখলভাবে একটি ধর্মীয় কাঠামোর ধ্বংসলীলা ও নির্জলা একটা রাজনৈতিক কাজ। এই ঘটনা ভারতীয় ও প্রবাসী মুসলমানদের মনে গভীর ক্ষত তৈরি করেছে। বহুজাতিক দেশ হিসেবে ভারতের একটা ভাবমূর্তি আছে। এখানে পরম সহিঞ্চুতায় সকল ধর্মের মানুষ শান্তিপূর্ণ ও ঐক্যবদ্ধভাবে বাস করে। ভারতের এই ভাবমূর্তি বিনষ্ট করেছে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: