শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
বিএফইউজে’র বার্ষিক কাউন্সিলে প্রস্তাব: ‘বন্দী সাংবাদিকদের মুক্তি ও বন্ধ গণমাধ্যম খুলে দিতে হবে’

বিএফইউজে’র বার্ষিক কাউন্সিলে প্রস্তাব: ‘বন্দী সাংবাদিকদের মুক্তি ও বন্ধ গণমাধ্যম খুলে দিতে হবে’

bfuj pic11_100454আমার সুরমা ডটকম : সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ ও নির্ভিক সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের অবিলম্বে মুক্তি এবং বন্ধ মিডিয়া অনতিবিলম্বে খুলে দেয়ার দাবী জানিয়েছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)। আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত বিএফইউজে’র বার্ষিক কাউন্সিল অধিবেশনে গৃহীত প্রস্তাবে এ দাবী জানানো হয়। এছাড়া কাউন্সিলে সাগর-রুনীসহ নিহত সকল সাংবাদিকের হত্যাকারিদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির মুখোমুখি করা, গণমাধ্যমের ওপর সব ধরণের চাপ ও হুমকি বন্ধ, বিজ্ঞাপনকে গণমাধ্যমের কন্ঠরোধের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকা, নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন এবং অষ্টম ওয়েজ বোর্ড গঠনের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানানো হয়েছে।
বিএফইউজে’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশনে সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন মহাসচিব এম এ আজিজ। কোষাধ্যক্ষের প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন মৌদাব্বের হোসেন। এছাড়া ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)সহ বিভিন্ন অঙ্গ ইউনিয়নের পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদকরা সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন। এসব রিপোর্টের ওপর আলোচনায় অংশ নেন, সাংবাদিক নেতা রুহুল আমিন গাজী, কবি আবদুল হাই শিকদার, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, নুরুল আমিন রোকন, রেজাউল করীম রাজু, শাহনেওয়াজ, শহীদুল ইসলাম, আবু ইউসুফ, আবদুস শহীদ, মুহাম্মদ বাকের হোসাইন, সরদার ফরিদ আহমদ, আমিরুল ইসলাম কাগজী, ইসকান্দার আলী চৌধুরী, শাইদুল ইসলাম কচি, আনিসুজ্জামান, আব্দুল আউয়াল, সৈয়দ ফজলে রাব্বি ডলার, মমিনুর রশিদ শাইন, শফিউল্লাহ শফি, খায়রুল বাশার, মোঃ শহীদুল ইসলাম, এহতেশামুল হক শাওন, নুর ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক রানা, মাফুজ মন্ডল প্রমুখ।
কাউন্সিলে গৃহীত প্রস্তাবে গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে দলনিরপেক্ষ সরকারের অধীনে দেশে একটি অংশগ্রহণমুলক, সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা ফিরিয়ে দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়। প্রস্তাবে সাংবাদিক সমাজের শীর্ষ সংগঠন বিএফইউজে’র নির্বাচিত সভাপতি এবং মেধাবী ও নন্দিত সাংবাদিক শওকত মাহমুদের বিরুদ্ধে ২৩টি বানোয়াট মামলা দিয়ে তাকে দিনের পর দিন রিমান্ডে নেয়ায় গভীর উৎকন্ঠা প্রকাশ করে অবিলম্বে অসুস্থ এই সাংবাদিক নেতাকে সসম্মানে মুক্তি দেয়ার দাবী জানানো হয়। প্রস্তাবে বলা হয়, দৈনিক আমার দেশ এর নির্ভিক সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে আড়াই বছর ধরে বানোয়াট মামলায় জেলে বন্দী করে রাখা হয়েছে। তাকে মুক্তি দিয়ে দায়েরকৃত সকল বানোয়াট ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।
প্রস্তাবে আরও বলা হয়, বাংলাদেশের গণমাধ্যমে এখন ঘোর দুর্দিন চলছে। বন্ধ গণমাধ্যমে দীর্ঘদিন বেকার থাকা সংবাদকর্মীদের নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছে। কারাবন্দী ও নির্যাতিত সাংবাদিকদের পরিবারে নেমে এসেছে  অমানিশা। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে দৈনিক আমার দেশ, দিগন্ত টেলিভিশন, ইসলামিক টেলিভিশন, চ্যানেল ওয়ানসহ বন্ধ করে দেয়া সকল গণমাধ্যম অনতিবিলম্বে খুলে দিতে হবে। রাজধানীর বাইরে আরও কয়েকশ’ সংবাদপত্র নানা অজুহাতে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সেগুলোর ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে।
ভিন্নমতের কারণে সরকারের বিজ্ঞাপন বৈষম্য ও রক্তচক্ষুর কবলে পড়ে পাঠকপ্রিয় সংবাদপত্র দৈনিক নয়াদিগন্ত, দৈনিক ইনকিলাব, দৈনিক সংগ্রাম ও দৈনিক দিনকাল পত্রিকা চরম অর্থকষ্টে ভুগছে বলে কাউন্সিলে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। এতে গণমাধ্যম কর্মীদের বেতন ভাতা বকেয়া পড়েছে মাসের পর মাস। বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতেও ভিন্নমতের সাংবাদিকদের ওপর অনৈতিক চাপ, হুমকি এবং চাকরিচ্যুতর ঘটনা ঘটছে। গণমাধ্যমের ওপর প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্য সব চাপ ও হুমকি বন্ধ করার দাবী জানিয়ে বিজ্ঞাপনকে গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রণের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহারের সরকারি ঘৃন্য তৎপরতা পরিত্যাগের আহবান জানানো হয়েছে।
কাউন্সিলের প্রস্তাবে বলা হয়, বর্তমান সরকারের আমলে সাগর-রুনীসহ নিহত ২৪ জন সাংবাদিকের খুনিদের অবিলম্বে পাকড়াও করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। একই সঙ্গে নিগৃহীত দুই সহস্রধিক সাংবাদিকের ওপর হামলা-মামলার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। প্রস্তাবে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বিরোধী ধারা বাতিল এবং জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা ও অনলাইন নীতিমালার নামে মিডিয়ার ওপর নয়া কালাকানুন চাপিয়ে দেয়ার চক্রান্ত বন্ধের জোর দাবী জানানো হয়। কাউন্সিলে সাংবাদিক সমাজের ‘সেকেন্ড হোম’খ্যাত জাতীয় প্রেসক্লাবকে দখলদারমুক্ত করে নির্বাচিত কমিটির হাতে এর পরিচালনার ভার ন্যস্ত করার পাশাপাশি সাংবাদিকদের রুটি-রুজির সংগ্রামে নেতৃত্বদানকারি সাংবাদিক ইউনিয়ন নিয়ে নোংরা ও ন্যাক্কারজনক অপতৎপরতা বন্ধের দাবী জানানো হয়েছে।
সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতন ভাতা প্রায় দ্বিগুণ করার প্রেক্ষাপটে নবম ওয়েজবোর্ড গঠন করে গণমাধ্যম কর্মীদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধির আশু পদক্ষেপ গ্রহণ এবং অষ্টম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবী জানানো হয়। সূত্র : বিজ্ঞপ্তি

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: