মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৮:৪৬ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
মহানবী (সা)-এর চিকিৎসা পদ্ধতি অলিম্পিকে

মহানবী (সা)-এর চিকিৎসা পদ্ধতি অলিম্পিকে

felpseআমার সুরমা ডটকম ডেক্সব্রাজিলে চলমান অলিম্পিকের এবারের আসরে জলদানব খ্যাত মাইকেল ফেলপসের শরীর দেখা গেছে কালচে-গোলাপি রঙের দাগ। ফেলপস ছাড়াও অনেক ক্রীড়াবিদের কাছে এটা এখন খুবই জনপ্রিয় একটি থেরাপি। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক সংস্থাও (আইওসি) এই থেরাপিকে বৈধতা দিয়েছে। আগেও অনেক অ্যাথলেটের গায়ে এমন দাগ দেখা গেছে। কিন্তু আলোচনা তৈরি হলো ফেলপসকে দেখে।

এটি মূলত বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ মহনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বর্ণিত ও নির্দেশিত একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা। আধুনিক পরিভাষায় কাপিং থেরাপি আর আরবিতে বলা হয় হিজামা। হিজামার মাধ্যমে ব্যাকপেইন, উচ্চ রক্তচাপ, পায়ে ব্যথা, হাঁটুর ব্যথা, মাথাব্যথা (মাইগ্রেন), ঘাড়ে ব্যথা, কোমরে ব্যথা, জয়েন্টে ব্যথা, আর্থ্যাইটিজ, বাত, ঘুমের ব্যাঘাত, থাইরয়েড ব্যাঘাত, জ্ঞান এবং স্মৃতিশক্তিহীনতা, ত্বকের বর্জ্য পরিষ্কার, অতিরিক্ত স্রাব নিঃসরণ বন্ধ করা, অর্শ, অন্ডকোষ ফোলা ও ফোঁড়া-পাঁচড়া ইত্যাদি প্রতিরোধ হয়। এছাড়াও হিজামার ফলে স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়, শরীর সতেজ হয়, কর্মস্পৃহা বাড়ে।

উল্লেখ্য, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা) হিজামা করেছেন মাথাব্যথার প্রতিষেধক হিসেবে। পিঠের ব্যথার জন্য দুই কাঁধের মাঝে ও ঘাড়ের দু’টি রগে। হিজামার উপকারিতা সম্পর্কে সিহাহ সিত্তার গ্রন্থসমূহে বহু হাদিস রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: