বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:১১ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
সংবাদ শিরোনাম :
এইচএসসির ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮৫.৯৫ শতাংশ নিহতের সংখ্যা ৫০০০ ছাড়ালো, তিন মাসের জরুরি অবস্থা জারি তুরস্কে রাজাকার ও বিএনপির লোকদের নিয়ে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের শোকর‌্যালি পাকিস্তানের সাবেক সামরিক শাসক পারভেজ মোশাররফের মৃত্যু চট্টগ্রাম কলেজের ১৭৫ শিক্ষার্থী ৩ ঘন্টার অভিযানে ডুবোচর থেকে উদ্ধার ফরিদপুরে একই পরিবারে ৫ সদস্যের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ কে হচ্ছেন রাষ্ট্রপতি জানা যাবে মঙ্গলবার বিশ্ব হাত গুটিয়ে বসে থাকলে আরেকটি রোহিঙ্গা গণহত্যা হবে: জাতিসঙ্ঘ ১০ দফা আদায়ে ব্যর্থ হলে বাংলাদেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবে: মির্জা ফখরুল বহিষ্কৃত নেতার সমাবেশে জেলা সভাপতি: উজ্জীবিত নেতাকর্মীরা
শেষ মুহূর্তের প্রচারণা: লড়াই হবে ত্রিমুখি-আওয়ামীলীগ-বিএনপি বনাম বিদ্রোহীপ্রার্থী

শেষ মুহূর্তের প্রচারণা: লড়াই হবে ত্রিমুখি-আওয়ামীলীগ-বিএনপি বনাম বিদ্রোহীপ্রার্থী

log-upমুহাম্মদ আব্দুল বাছির সরদার : আগামি ২৮ মে শনিবার অনুষ্ঠিতব্য দিরাই-শাল্লার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই উপজেলাসহ জেলার সর্বত্র চলছে নানা ধরণের জল্পনা-কল্পনা ও আলোচনা-পর্যালোচনা। চলছে চুড়ান্তভাবে হিসাব-নিকাশ-কার মাথায় বসবে বিজয়ের মুকুট? পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিল থেকে শুরু করে প্রতিদিনই চলছে ভোটারদের সাথে আলাপ-আলোচনা ও দোয়া চাওয়ার পর্ব। এবারের নির্বাচনে ভোটারগণ অন্য যে কোন সময়ের তুলনায় অনেক সতর্ক ও সচেতন; ফলে কার ভাগ্যে শিকে ছিঁড়ে তা কেউই হলফ করে বলতে পারছেন না। তবে তারা জানান, মূলত নির্বাচন হবে ত্রিমুখি-আওয়ামীলীগ-বিএনপি বনাম বিদ্রোহীপ্রার্থী।
জানা যায়, দিরাই উপজেলার ৯টি ও শাল্লা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নগুলোতে চেয়ারম্যান, সাধারণ আসনের সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের সদস্যদের মধ্যে এসব প্রতীক দেয় নির্বাচন কমিশন। সূত্র মতে, দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন আওয়ামীলীগ মনোনীতপ্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান খান (নৌকা), বর্তমান চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী (আনারস), আল মামুন (মোটর সাইকেল), মহসিন রেজা (ঘোড়া) ও বিএনপির মোঃ আনিছুর রহমান (ধানেরশীষ)। বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, আওয়ামীলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে এ বছর দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হন দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী। তার পরিবর্তে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজুয়ান খানকে। যার ফলে বিদ্রোহী হিসেবেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন জাহাঙ্গীর। এছাড়াও একই দল থেকে রয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আল মামুন ও আওয়ামীলীগ নেতা মহসিন রেজা। আওয়ামীলীগের একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় বিএনপির একক প্রার্থী হিসেবে অনেকটা সুবিধায় রয়েছেন ধানেরশীষ প্রতীক নিয়ে আনিসুর রহমান বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ভোটাররা। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬ হাজার ৯১১ জন, এরমধ্যে পুরুষ ৮ হাজার ৬৬২ জন, নারী ৮ হাজার ২৪৯ জন।
ভাটিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে বেলাল আহমেদ (ঘোড়া), মোঃ শাহজাহান কাজী (মোটর সাইকেল), আলমগীর বক্ত চৌধুরী (আনারস), আওয়ামীলীগের জাহেদুল ইসলাম চৌধুরী (নৌকা) ও বিএনপির মোঃ আফজল হোসেন (ধানেরশীষ)। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মতিউর রহমানের অনুসারি ও বর্তমান চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীর প্রধান প্রতিপক্ষ হয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অনুসারি শাহজাহান কাজী। উপজেলা আওয়ামীলীগের অনেক নেতৃবৃন্দ বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাহান কাজীর পক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন বলে সরেজমিনে দেখা গেছে। এ ইউনিয়নে বিএনপির একক প্রার্থী আফজল হোসেন ও বিদ্রোহী প্রার্থী শাহজাহান কাজীর মধ্যে ভোটের লড়াই হবে বলে ধারণা করছেন ভোটাররা। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৩৭৮ জন, পুরুষ ৬ হাজার ৭৫১ জন, নারী ৬ হাজার ৬২৭ জন।
রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে নওশেরান চৌধুরী (ঘোড়া), মোঃ রুনু মিয়া সর্দার (মোটর সাইকেল), জহিরুল ইসলাম (চশমা), মোঃ আব্দুল হক তালুকদার (আনারস), আওয়ামীলীগের সৌম্য চৌধুরী সমু (নৌকা), বিএনপির জুনায়েদ মিয়া (ধানেরশীষ)। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী সৌম্য চৌধুরী সমুর ভোটে ভাগ বসাবেন বিদ্রোহী প্রার্থী সিলেট মহানগর যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জুয়েল। বিএনপি প্রার্থী জুনায়েদ মিয়ার ভোটে ভাগ বসাবেন বিএনপি নেতা নওশেরান চৌধুরী। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬ হাজার ৯১৮ জন, পুরুষ ৮ হাজার ৫১৬ জন, নারী ৮ হাজার ৪০২ জন।
চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে পরেশ লাল দাস (আনারস), শাহিন সুলতান তালুকদার শাহজাহান (ঘোড়া), বিএনপির রতন কুমার দাস (ধানেরশীষ) ও আওয়ামীলীগের পরিতোষ রায় (নৌকা)। এ ইউনিয়নে লড়াই হবে নৌকা ও ধানেরশীষের মধ্যে। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৮ হাজার ৪৩০ জন, পুরুষ ৯ হাজার ৩২৬ জন, নারী ৯ হাজার ১০৪ জন।
দিরাই সরমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান এহসান চৌধুরী (আনারস), মহানন্দ দাস (ঘোড়া), বিএনপির মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন (ধানেরশীষ), আওয়ামীলীগের কানুলাল দাস (নৌকা) ও জাসদের কৃষ্ণকান্ত রায় (মশাল)। এ ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান এহসান চৌধুরীকে বিএনপির দলীয় প্রার্থী না করে উপজেলা ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন জুয়েলকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন এহসান চৌধুরী। তবে ভোটারদের ধারণা, মূল লড়াই হবে আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী কানু লাল দাস ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী এহসান চৌধুরীর মধ্যে। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫৯০ জন, পুরুষ ৫ হাজার ২১৪ জন, নারী ৫ হাজার ৩৭৬ জন।
করিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে শাহাজাহান সরদার (আনারস), আওয়ামীলীগের বর্তমান চেয়ারম্যান আছাব উদ্দিন সরদার (নৌকা) ও বিএনপির মোঃ আব্দুর রহিম (ধানেরশীষ)। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী আছাব উদ্দিন সরদারের সাথে মূল লড়াই হবে বিএনপির একক প্রার্থী আব্দুর রহিম মাস্টারের। দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় আওয়ামীলীগ থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শাহজাহান সরদার। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৭ হাজার ২৮৬ জন, পুরুষ ৮ হাজার ৭৭০ জন, নারী ৮ হাজার ৫১৬ জন।
জগদল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ইসলামি আন্দোলনের মোঃ সোলাইমান হাসান (হাতপাখা), স্বতন্ত্র মোঃ শিবলী আহমেদ বেগ (আনারস), আওয়ামীলীগের মোঃ হুমায়ুন রশিদ (নৌকা), জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেএম তোফায়েল আহমদ (খেজুরগাছ) ও বিএনপির মোঃ কামরুল ইসলাম (ধানেরশীষ)। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী জেলা সভাপতি মতিউর রহমান অনুসারি সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগ নেতা হুমায়ুন রশীদ লাভলুর প্রধান প্রতিপক্ষ হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অনুসারি শিবলী আহমদ বেগ। বিএনপির একক প্রার্থী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম; এ ইউনিয়নের ভোটার ও সমর্থকদের দাবি-তিনি অনেকটা সুবিধায় আছেন। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ৫৯৪ জন, পুরুষ ৯ হাজার ৭৫৩ জন, নারী ৯ হাজার ৮৪১ জন।
তাড়ল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান নূরুল হক তালুকদার (চশমা), রুহুল আমীন (ঘোড়া), দ্রুপদ চৌধুরী নুপুর (আনারস), মোঃ আকিকুর রেজা (মোটর সাইকেল), মোঃ আব্দুল কদ্দুছ (টেলিফোন), আওয়ামীলীগের আহমদ চৌধুরী (নৌকা), বিএনপির আলী আহমদ (ধানেরশীষ) ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের হাজী গিয়াস উদ্দিন (খেজুরগাছ)। এ ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান নূরুল হক তালুকদারকে দলীয় মনোনয়ন না দেয়ায় বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন তিনি। তবে তার প্রতিপক্ষ হচ্ছেন বিএনপি মনোনীতপ্রার্থী আলী আহমদ। আওয়ামীলীগ প্রার্থী আহমদ চৌধুরীর প্রধান প্রতিপক্ষ হয়েছেন একই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আকিকুর রেজা ওরফে পুলিশ। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৩ হাজার ৮৯৭ জন, পুরুষ ৬ হাজার ৮৭৭ জন, নারী ৭ হাজার ২০ জন।
কুলঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ আহাদ মিয়া (ঘোড়া), কাওছার গাজী চৌধুরী (চশমা), পবিত্র মোহন দাস (টেলিফোন), মোঃ একরার হোসেন (মোটর সাইকেল), মোঃ মিজবাহ উজ্জামান চৌধুরী (আনারস), আওয়ামীলীগের মিলন মিয়া (নৌকা) ও বিএনপির মোঃ মুজিবুর রহমান (ধানেরশীষ)। এ ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী প্রবাসী মুজিবুর রহমানের প্রধান প্রতিপক্ষ হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী প্রবাসি মিসবাহ উজ্জামান চৌধুরী। অপরদিকে আওয়ামীলীগ প্রার্থী মিলন মিয়ার প্রধান প্রতিপক্ষ হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী একরার হোসেন ও পবিত্র দাস। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ১৩৯ জন, পুরুষ ৯ হাজার ৪৩৭ জন, নারী ৯ হাজার ৭০২ জন।
এদিকে শাল্লা উপজেলার বাহারা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন আওয়ামীলীগের বিধান চন্দ্র চৌধুরী (নৌকা), নরেশ চৌধুরী (ঘোড়া) ও স্বতন্ত্র হিসেবে বর্তমান চেয়ারম্যান জাকির হোসেন (আনারস)। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৮ হাজার ৯৯১ জন, পুরুষ ৯ হাজার ৩৭৫ জন, নারী ৯ হাজার ৬১৬ জন। হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন আওয়ামীলীগের বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল (নৌকা), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহীপ্রার্থী সুবল চন্দ্র দাস (ঘোড়া) ও বিএনপির শৈলেন কুমার দাস (ধানেরশীষ)। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ৯৫৪ জন, পুরুষ ৯ হাজার ৯৭৪ জন, নারী ৯ হাজার ৯৮০ জন। আটগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন স্বতন্ত্র হিসেবে হাজিরুল ইসলাম (টেবিলফ্যান), ফজলুর রহমান (দুটিপাতা), খুরশেদ মিয়া (আনারস), আব্দুর রহমান (ঢোল), জুবায়ের মনির (ঘোড়া), জাকির হোসেন (মোটর সাইকেল), আওয়ামীলীগের আবুল কাসেম আজাদ (নৌকা), বিএনপির আব্দুল্লাহ আল নোমান (ধানেরশীষ) ও বিএনপির বিদ্রোহীপ্রার্থী নজরুল ইসলাম (চশমা)। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৯৮২ জন, পুরুষ ১০ হাজার ৫২৫ জন, নারী ১০ হাজার ৪৫৭ জন। শাল্লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন আওয়ামীলীগের আব্দুল ছত্তার মিয়া (নৌকা), আওয়ামীলীগের বিদ্রোহীপ্রার্থী জামান চৌধুরী ফুল মিয়া (আনারস), আবুলেইছ চৌধুরী (ঘোড়া) ও বিএনপির সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (ধানেরশীষ)। সর্বশেষ এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬ হাজার ৮৭০ জন, পুরুষ ৮ হাজার ৪৬২ জন, নারী ৮ হাজার ৪০৮ জন।
এদিকে শাল্লা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহীদের সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে আওয়ামীলীগ। উপজেলার চারটি ইউনিয়নেই চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। আওয়ামীলীগের অনেক নেতাকর্মীও বিদ্রোহীদের সমর্থন জানিয়ে মাঠে কাজ করছেন। ফলে এই উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনী লড়াইয়ে আওয়ামীলীগের শত্র“ আওয়ামীলীগ। ফলে উপজেলার চায়ের দোকান থেকে শুরু করে হোটেল, রেস্টুরেন্ট, অলিগলি, আড্ডাখানা সবার মুখেই শুধু নির্বাচন আর প্রার্থীদের আলোচনা-সমালোচনা।
আগামি ২৮ মে চারটি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। চারটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেনÑ১নং আটগাঁও ইউপিতে আবুল কাশেম আজাদ, ২নং হবিবপুর ইউনিয়নে বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল, ৩নং বাহাড়া ইউনিয়নে বিধান চন্দ্র চৌধুরী ও ৪নং শাল্লা ইউনিয়নের আব্দুস ছত্তার মিয়া। বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন ১০ জন প্রার্থী। তারা হলেন ১নং আটগাঁও ইউনিয়নে হাজিরুল ইসলাম, ফজলুর রহমান, খোরশেদ মিয়া, আব্দুর রহমান, সেলিম উদ্দিন, মোঃ জুবায়ের মনির, মোঃ জাকির হোসেন, ২নং হবিবপুর ইউনিয়নে সুবল চন্দ্র দাস, ৩নং বাহাড়া ইউনিয়নে নরেশ চন্দ্র চৌধুরী, ৪নং শাল্লা ইউনিয়নে জামান চৌধুরী ফুল মিয়া, আবুলেইছ চৌধুরী। জানা যায়, বিদ্রোহী প্রার্থীরা ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। ফলে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রার্থীরা বিপাকে পড়েছেন। দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়েছেন সাধারণ নেতাকর্মীরাও।
অন্যদিকে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম সিরাজ শাল্লা ইউপিতে এককভাবে লড়ছেন। আটগাঁও ইউপিতে বিএনপির দলীয় প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল নোমান, বিদ্রোহী প্রার্থী নজরুল ইসলাম ও হবিবপুর ইউনিয়নে বিএনপির দলীয় প্রতীক প্রাপ্ত শৈলেন কুমার দাস একক প্রার্থী হয়েছেন। বাহাড়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন বিএনপির জাকির হোসেন।
দিরাই-শাল্ল¬ায় ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র ৭১টি
দিরাই ও শাল্লা থানা সূত্রে জানা যায়, এ বছর দুই উপজেলায় ১২৫টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে সাধারণসহ ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হচ্ছে মোট ৭১টি, এরমধ্যে দিরাইয়ের ৮টি ইউনিয়নে সাধারণ ঝুঁকিপূর্ণ ৩৭টি ও শুধুমাত্র কুলঞ্জ ইউনিয়নের সবকটি সেন্টারই ঝুঁকিপূর্ণ। আর শাল্লা উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৩৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে ২২টি।
জানা যায়, দিরাই উপজেলার নোয়াগাঁও, বলনপুর, কুলন্দরপুর, কুচিরগাঁও, পঞ্চগ্রাম মধুরাপুর, আনোয়ারপুর, গচিয়া, অনন্তপুর, জাহানপুর, রন্নারচর, শিরিয়ারচর, ধাপকাই, চরনারচর, লৌলারচর, গোপালপুর, হাসনাবাদ, এলংজুরি, মাহতাবপুর, হাসিমপুর, কল্যাণী, ছিতলিয়া, জারলিয়া, সাকিতপুর, হলিমপুর, চান্দপুর, কচুয়া, নগদীপুর, সিংহনাথ, বাসুরি, মিঠাপুর, রাজনাও, সরালীতোপা, ভাঙ্গাডহর, বাউসি কেন্দ্রগুলোকে সাধারণ ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে স্থানীয় প্রশাসন চিহ্নিত করেছেন।
শাল্লা উপজেলার লাউতলা, আটগাঁও, ভাটিএরাবাজ, শশারকান্দা, মাহমুদনগর, কিড়িডর, শাহেদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়, মোক্তারপুর, প্রতাপপুর, ভাটগাঁও, কার্তিকপুর, চাকুয়া, শাসখাই কেন্দ্রগুলোকে সাধারণ ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে স্থানীয় প্রশাসন চিহ্নিত করেছেন।
এদিকে দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, নির্বাচন নিরপেক্ষ করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে। নির্বাচনের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১০ জন ম্যাজিস্ট্রেটের অধিনে বিজিবির ৯টি, র‌্যাবের ৩টি, পুলিশের ৩টি স্ট্রাইকিং ফোর্সসহ ১২টি মোবাইল টিম কাজ করবে। এছাড়া প্রতি কেন্দ্রে পুলিশ ৫ জন ও আনসার-ভিডিবির সদস্য ১৭ জন করে মোট ২২ জনের একটি টিম সার্বিক নিরাপত্তার জন্য নিযুক্ত থাকবে।
অন্যদিকে শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, নির্বাচনের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ৬ জন ম্যাজিস্ট্রেটের অধিনে বিজিবির ৪টি, র‌্যাবের ২টি, পুলিশের ৮টি স্ট্রাইকিং ফোর্স কাজ করবে। এছাড়া প্রতি কেন্দ্রে পুলিশ ও আনসার-ভিডিবির সদস্যসহ মোট ২০ জনের একটি টিম সার্বিক নিরাপত্তার জন্য নিযুক্ত থাকবে।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক পঞ্চম পর্যায়ের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তফসিল অনুযায়ি মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ৩ মে মঙ্গলবার, মনোনয়নপত্র বাছাই ৪ ও ৫ মে বুধ-বৃহস্পতিবার, আপিল দাখিল ৬ ও ৮ মে শুক্র-রোববার, আপিল নিষ্পত্তি ৯ ও ১১ মে সোম-বুধবার, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ ১২ মে বৃহস্পতিবার, চুড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্ধ ১৩ মে শুক্রবার ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৮ মে ২০১৬ শরিবার।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: