শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২৭ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
ছাতকে প্রচন্ড ঘুর্ণিঝড়ে সহস্রাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, আহত ২০

ছাতকে প্রচন্ড ঘুর্ণিঝড়ে সহস্রাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, আহত ২০

চান মিয়া, বিশেষ প্রতিবেদক (সুনামগঞ্জ): ছাতকে পাহাড়ি ঢল ও আগাম বন্যায় ধান, মাছ, হাঁস, গবাদিপশুর ব্যাপক ক্ষতি সাধনের রেশ কাটতে না কাটতেই আরেকটি ঘুর্ণিঝড়ের মতো মহাবিপর্যয়ের সম্মুখিন হতে হয়েছে লোকজনকে। এখানে স্মরণকালের ভয়াবহ ও দীর্ঘস্থায়ী ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে ১০ সহস্রাধিক বসত-বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, গাছপালা ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থা। ফলে মরার উপর খাড়ার ঘাঁ-এর ন্যায় এক বিপর্যয় কাটিয়ে উঠার আগেই আরেক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছেন উপজেলাবাসি। এতে মহিলাসহ আহত হয়েছেন প্রায় ২০ ব্যক্তি। জানা যায়, রোববার (৩০ এপ্রিল) রাত ১১টা থেকে উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার উপর দিয়ে শুরু হয় প্রচণ্ড বেগে ঘূর্ণিঝড়। একটানা ঘূর্ণিঝড় চলে রাত ১২ টার পরও। রাত ১০টা থেকে আকাশে ছিল প্রচণ্ড গর্জন। এ সময় ঘূর্ণিঝড়ের শাঁ শাঁ শব্দে উপজেলার ৮৪ হাজার ৪শ’ ৩০ পরিবারের মধ্যে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এসব পরিবারের কাঁচা, সেমিপাকা ঘরবাড়ি ও বিল্ডিং মালিকদের গাছপালাসহ তাদের কাঁচা ঘরের ব্যাপক ক্ষতি করে। ইউপি চেয়ারম্যানদের হিসেব মতে, ঘুর্ণিঝড়ে প্রায় সহস্রাধিক বাড়িঘর একেবারে বিধ্বস্ত ও আংশিক ক্ষতি করেছে আরো প্রায় ৯ হাজার পবিারের। পৌরসভার প্যানেল মেয়র তাপস চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান অদুদ আলম, দেওয়ান পীর আবদুল খালিক রাজা, আখলাকুর রহমান, মাস্টার আওলাদ হোসেন, মাস্টার আবুল হাসনাত, আবদুল মছব্বির, সাহাব উদ্দিন মোঃ সাহেল, সাইফুল ইসলামসহ অনেকে জানান, দোকানপাটসহ প্রতি ইউনিয়নে শতাধিক ঘরবাড়ি সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ও আরো ৪ থেকে ৫শ’ করে ঘরবাড়ির আংশিক ক্ষতি করে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড়ে উপজেলায় অর্ধলক্ষাধিক গাছপালা বিধ্বস্ত করেছে। চেয়ারম্যানরা বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় ২০ জন লোক আহত হয়েছে বলে দাবি করেন। ইউপি চেয়ারম্যান শায়স্তা মিয়া বিধ্বস্ত ঘরের নিচে পড়ে মঈনপুরের আলী নূরের মায়ের একটি হাত ও আলী আসকন নামের অপর ব্যক্তি আহত হয়েছে বলে জানিয়ে বলেন, মঈনপুর বাজারের ব্যবসায়ি রিয়াজুলের দোকানের টিনের চাল উড়িয়ে নেয়ায় ৪/৫ লাখ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছ। তিনি ইউনিয়নের ৪ হাজার গাছপালা উপড়ে ফেলেছে বলেও দাবি করেন। এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুলসহ ইউপি চেয়ারম্যানরা ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় এগিয়ে আসতে সরকারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নাছির উল্লাহ খান বলেন, প্রতি ইউনিয়নে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা করা হচ্ছে। অসহায়দের সাহায্যে সরকার এগিয়ে আসবে বলেও আশ্বস্ত করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: