বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪৩ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
জামালগঞ্জে কৃষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

জামালগঞ্জে কৃষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

মোঃ মানিক মিয়া, জামালগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা: সুনামগঞ্জে হালির হাওরের পানি নিষ্কাসনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী ছাতিধরা জলমহালের অবৈধ ইজারাদার ও তার লাঠিয়াল বাহিনীর শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে হাওর বাঁচাও, জামালগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন কমিটি। জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিতভাবে আবেদন জানিয়েছেন হাওরপাড়ের কৃষকরা। শনিবার দুপুরে জামালগঞ্জ উপজেলার পরিষদের সামনে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন হাওরপাড়ের কৃষকরা।
জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত আবেদনে স্বাক্ষর করেছেন হাওর বাঁচাও, জামালগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের আহবায়ক গুল আহমেদ, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রজব আলী, সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক জহিরুল হক তালুকদার, আব্দুল আহাদ, আখতারুজ্জামান তালুকদার, তাপস আফিন্দি, সদস্য সচিব আকবর হোসেন, জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের যুগ্ম-আহবায়ক জামাল হোসেন, ভীমখালী ইউনিয়নের সদস্য সচিব আমিরুল হক, বেহেলী সদস্য সচিব রাসেল মিয়া, উত্তর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান, আব্দুল কাদির, ছমির মিয়া, কৃষক জাকির হোসেন, মতলিব মিয়াসহ ৫০ জন কৃষক।
লিখিত আবেদনে উল্লেখ করেন, আমরা হাওর বাঁচাও, জামালগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের সদস্য ও এলাকার কৃষক বটে গেল বছরের হাওরের বাঁধ ভেঙ্গে ফসল তলিয়ে যাওয়ায় উপজেলার কৃষকরা বিগত কয়েক মাস ভীষন দুশ্চিন্তায় দিনাতিপাত করছেন। অন্যান্য বছর কার্তিক মাসের শেষ দিকে বীজ তলায় বোর ধানের চারা রোপণ করলেও বর্তমানে অগ্রহায়ন মাসের প্রথম সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও এখনও বীজ তলা থেকে পানি সরেনি। বর্তমানে স্লুইচ গেইটের ভিতরে ছাতিধরা জলমহালের ইজারাদার বাঁশ, কাঠ ও জাল দিয়ে একাধিক ঘের সৃষ্টি করে পানি নিষ্কাশনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। কৃষকদের দাবীর মুখে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল সরজমিন পরিদর্শন করে জলমহালের অবৈধ ইজারাদারের লোকদেরকে ঘের তুলে দিতে বলা হলেও তারা কোন কর্ণপাত করেনি। উল্টো অশালীন আচরণ ও দূর্ব্যবহার করেছে কৃষকদের সাথে। এমতাবস্থায় জরুরী ভিত্তিতে ঘের তুলে না দিলে এক মাসেও হাওরের পানি কমবে না। হালির হাওরে রাতলার স্লুইচ গেইটের ভিতরের অংশ দিয়ে পানি নদীতে বাহির হচ্ছেনা। উপজেলার হালির হাওর থেকে পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় কৃষকরা হতাশায় ভূগছেন। স্মারকলিপিতে অবিলম্বে পানি নিষ্কাশনের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা ও পানি প্রতিবন্ধকতাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবী জানানো হয়।
এ বিষয়ে জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শামীম আল ইমরান বলেন, কৃষকদের স্মারকলিপির কপি পেয়েছি, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদনের কপি প্রেরন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: