বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক, অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৬২৫-৬২৭৬৪৩
১৫ জানুয়ারি থেকে গণছুটিতে যাওয়ার হুমকি বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের

১৫ জানুয়ারি থেকে গণছুটিতে যাওয়ার হুমকি বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের

xcvbnm_111333আমার সুরমা ডটকম : অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোয় ‘অবনমনের’ প্রতিবাদে আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে কর্মবিরতিতে যাচ্ছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা। বৃহস্পতিবার থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে এক ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করা হবে। আগামী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে এই কর্মসূচি। এ সময়ের মধ্যে দাবি আদায় না হলে ১৫ জানুয়ারি থেকে গণছুটি, পূর্ন কর্মবিরতী পালন করবেন তারা। এতে ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ, অটোমেটিক ক্লিয়ারিং হাউজের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাবে, যাতে অচল হয়ে পড়বে সবধরনের ব্যাংকিং লেনদেন। আজ বুধবার এক সাধারণ সভায় এসব কর্মসূচি ঘোষণা করে বাংলাদেশ ব্যাংক অফিসার্স ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল। সভায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সর্বস্তরের কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন।
সম্প্রতি ঘোষিত অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোয় বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের প্রবেশ পদকে (সহকারী-পরিচালক) ৯ম গ্রেডে অন্তর্ভূক্ত করার প্রতিবাদে ২২ ডিসেম্বর থেকে বিক্ষোভ, মানববন্ধন, কালোব্যাজ ধারন, প্রতীকী কলম বিরতী ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচিসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা। গত ২৩ ডিসেম্বর বুধবার বেতন কাঠামো সংশোধন করে প্রবেশ পদে বিসিএস কর্মকর্তাদের সমান গ্রেড অর্থাত্ ৮ম গ্রেডে বেতনসহ বিভিন্ন দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দেন কেন্দ্রীয় ব্যাকের কর্মকর্তারা। এরপর কালোব্যাজ ধারন এবং মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। গত বৃহস্পতিবার পালন করেন প্রতীকী কলম বিরতি কর্মসূচি।
বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের দাবি দীর্ঘ দিনের। তবে সর্বশেষ ঘোষিত বেতন কাঠামোয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তাদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো না দিয়ে উল্টো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রবেশ পদ অর্থাৎ সহকারী পরিচালক পদ ৯ম গ্রেডে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। যেখানে বিসিএস কর্মকর্তাদের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে ৮ম গ্রেডে।
সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহরিয়ার সিদ্দিকী গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সভা থেকে দাবি মেনে নেয়ার জন্য ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত আলটিমেটাম দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো ধরনের আশ্বাস না পেলে পরবর্তী সময়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য গণছুটি, কর্মবিরতি, ক্লিয়ারিং বন্ধ করে দেয়া, পেমেন্ট সিস্টেম বন্ধ করে দেয়া, আমদানি-রফতানি বাণিজ্য মনিটরিং সিস্টেম ড্যাশবোর্ড বন্ধ করে দেয়াসহ বিভিন্ন ধরনের লেনদেন বন্ধ করে দেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: