রবিবার, ১৪ Jul ২০২৪, ০৯:১২ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক: অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৭৯৮-৬৭৬৩০১

অবশেষে স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে সাবেক মেয়র আজিজুর রহমান বুলবুলের: উদ্বোধন কাল

amarsurma.com

মুহাম্মদ আব্দুল বাছির সরদার:
অবশেষে দীর্ঘদিনের কাক্সিক্ষত দিরাই পৌরসভার নিজস্ব ভবন আগামিকাল বুধবার বেলা বারোটায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করবে। ভবনটি উদ্বোধন করবেন সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তা। এছাড়া উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা, উপজেলা প্রশাসন ও আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে দিরাই পৌরসভার নতুন ভবন হওয়ার পেছনের কারিগর হচ্ছেন পৌরসভার চণ্ডিপুর গ্রামের কৃতিসন্তান, সাবেক সফল মেয়র ও বর্তমান যুক্তরাজ্য প্রবাসি মোঃ আজিজুর রহমান বুলবুল। তিনি তার মেয়াদকালে দিরাই পৌরসভার নিজস্ব ভবনের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে নিজের জায়গা দিয়ে সাধারণ মানুষের সুবিধার কথা চিন্তা করে পাশে দাঁড়িয়েছেন।

বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানায়, সাবেক সফল মেয়র জনাব আজিজুর রহমান বুলবুলের অসামান্য কৃতিত্বের ফসল দিরাই পৌরসভার নবনির্মিত ভবন শুভ উদ্বোধন করবেন ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি।
সদা হাস্যোজ্জ্বল মুখ, পরমত সহিষ্ণুতার অধিকারী, সৎ ও নিষ্ঠাবান, নিরহংকারী, নির্লোভ, পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ ও বিশিষ্ট সমাজসেবক এবং সাদা মনের মানুষ। তিনি লন্ডন প্রবাসী হলেও যখন দেশে আসতেন সাধারনভাবেই চলাফেরা করতেন। এলাকার মানুষ তাকে দানবীর ও গরীবের বন্ধু এবং সাদা মনের মানুষ হিসাবেই জানে। এটাই ছিলো উনার বড় পরিচয় যা সবাই জানে। তাঁর কারণ ছিলো নিজেকে তিঁনি সহজেই বিলিয়ে দিতেন সবার মাঝে।
তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন “কেজাউড়া হিরণ মিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়”। এই গ্রামটি ছিল যাতায়াত অযোগ্য, সুবিধাবঞ্চিত, নিরক্ষর এবং শিক্ষার মান ও অবকাঠামো ছিল খুবই নিম্নমানের। এই গ্রামে শিক্ষার আলো তিনিই প্রথম দেখিয়েছিলেন যা এখন ও চলমান। এখন ঐ গ্রামের কিছু সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী বিভিন্ন হাইস্কুলে ও কলেজে পড়ালেখা করছে। এটা দিরাইবাসীর জন্য গর্বের বিষয়।

চান্দিপুর ইসলামিয়া মাদরাসার দুতলা বিল্ডিংটিও জনাব আজিজুর রহমান বুলবুল মহোদয় নিজস্ব অর্থায়ণে সংস্কার করেছিলেন। যার ফলে আজ শত শত ছাত্র দ্বীনি শিক্ষা অর্জন করছে। বিশেষ করে ঐতিহ্যবাহী চান্দিপুর ইসলামিয়া মাদরাসাকেও টাইটেল পর্যন্ত করার আবেদন করা হয়েছে।
তার সততা, আদর্শ, দেশপ্রেম, জনগনের জন্য ভালোবাসা ও উদারতা প্রত্যক্ষভাবে উপলব্ধি করেছিলেন ভাটি এলাকার সিংহপুরুষ বর্ষিয়ান পার্লামেন্টিরিয়ান নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। এই বর্ষিয়ান নেতাই জনাব আজিজুর রহমান বুলবুলকে বুকে জড়িয়ে নিয়েছিলেন এবং দিরাই পৌরসভাকে আধুনিক রোল মডেল হিসাবে গড়ে তোলার জন্য দায়িত্ব দিয়েছিলেন।
বিলেতের জাঁকজমকপূর্ণ জীবন পরিহার করে মাটির টানে, হাজার হাজার মানুষের ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে দেশে ফিরে এসেছিলেন এবং পৌরসভার সেবক হিসাবে স্বচ্ছভাবে ৫টি বছর স্বপ্নের বীজ রোপণ করেছিলেন যার ফল আজ দিরাই পৌরবাসী ভোগ করছে। মানুষ অতীত ভূলতে পারে, কিন্তু ইতিহাস অতীত ভূলে না বরং ইতিহাস অতীতকে সংরক্ষণ করে রাখে।
যেভাবে বাস্তবায়ন হল পৌর ভবনের কাজঃ
১। জায়গা নির্ধারণ করলেন সাবেক মেয়র আজিজুর রহমান বুলবুল।
২। নিজেদের পারিবারিক সম্পত্তি ১৭ শতক জায়গা দানসহ জমি অধিগ্রহণ করলেন আজিজজুর রহমান বুলবুল।
৩। মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন আনলেন আজিজুর রহমান বুলবুল।
৪। পৌরভবনের জন্য টেন্ডার কল করেন আজিজুর রহমান বুলবুল।
৫। এমনকি ঠিকাদারকে কাজের নির্দেশ দিলেন আজিজুর রহমান বুলবুল। এর প্রত্যেকটি কাজ হয়েছে উনার মেয়াদকালে।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com