বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০২৪, ০৯:০১ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক: অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৭৯৮-৬৭৬৩০১

এইচএসসির ফলাফলে দিরাই ডিগ্রি কলেজ তৃতীয়

amarsurma.com
এইচএসসির ফলাফলে দিরাই ডিগ্রি কলেজ তৃতীয়

আমার সুরমা ডটকম:

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার একমাত্র সরকারি ডিগ্রি কলেজ ও দেশের একমাত্র এতিম ও অসহায়দের আবাসিক বিদ্যালয় হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমি এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় ফলাফল বিপর্যয়ে রয়েছে। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় দিরাই উপজেলায় ৮টি কলেজ থেকে মোট ১ হাজার ৮৯১ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে, এরমধ্যে ১ হাজার ২৫৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩২ জন, পাসের হার ৭১ দশমিক ৬২ শতাংশ।
দিরাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের অবস্থিত বিবিয়ানা ডিগ্রি কলেজ থেকে ৩৯০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে ৩৭০ জন উত্তীর্ণ হয়ে উপজেলার মধ্যে সেরা ফলাফল করেছে, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৩০ জন, পাসের হার ৯৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে হাতিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ; তাদের ১২১ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৮৯ জন, পাসের হার ৭৩ দশমিক ৫৫ শতাংশ, তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে দিরাই সরকারি ডিগ্রি কলেজ; তাদের ৮১৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৫৫৩ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন, পাসের হার ৬৭ দশমিক ৬০ শতাংশ।
এছাড়াও সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত মহিলা কলেজ থেকে ১৮৪ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ১১১ জন, পাসের হার ৬০ দশমিক ৩২ শাতংশ। আটগ্রাম মহাবিদ্যালয় থেকে ৪৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ১৯ জন, পাসের হার ৪০ দশমিক ৪২ শতাংশ। জগদল কলেজ থেকে ১৫২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৬০ জন, পাসের হার ৩৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ। রজনীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে ১১০ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ৩৪ জন, পাসের হার ৩০ দশমিক ৯০ শতাংশ এবং বাংলাদেশ ফিমেইল একাডেমী থেকে ৬৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে মাত্র ২০ জন, পাসের হার ২৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ।
এ ব্যাপারে দিরাই সরকারি ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপাল ধীমান কির্ত্তনিয়া জানান, দিরাই ডিগ্রি কলেজটি সরকারিকরণ হওয়ার পর থেকে নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। সরকার আমাদের চাহিদা অনুযায়ি শিক্ষক না দেয়ায় আমরা নিয়মিত ক্লাস নিতে পারছি না। তাছাড়া উপজেলার বড় একটি ডিগ্রি কলেজ হওয়ার সুবাদে শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে বাড়তি চাপ থাকে। সেই অনুপাতে শিক্ষক না থাকায় পাঠদানে ব্যাঘাত ঘটছে। তবে যেসব বিষয়ের শিক্ষক রয়েছেন, তারা নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন বলেও তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com