বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০২৪, ১১:২৩ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক: অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৭৯৮-৬৭৬৩০১
দক্ষিণ সুনামগঞ্জে নির্মাণাধীন থানা ভবনের কাজ শেষ পর্যায়, উদ্বোধন আগামী ফেব্র“য়ারি-মার্চে

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে নির্মাণাধীন থানা ভবনের কাজ শেষ পর্যায়, উদ্বোধন আগামী ফেব্র“য়ারি-মার্চে

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ, স্টাফ রিপোর্টার (সুনামগঞ্জ): বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক গেজেটে প্রকাশিত ২৭ জুলাই ২০০৬ সালে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন, ১৫৫টি গ্রাম, ১১৮টি মৌজা নিয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ঘোষণা করা হয়। গত ২০১৪-১৫ অর্থবছরে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপির প্রচেষ্টায় নির্মাণ কাজ শুরু করা হয় আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার প্রশাসনিক ভবন। থানা ও উপজেলা পৃথক করার আগে এ অঞ্চলের মানুষ অনেক কষ্ট করে পুলিশের সেবা পেতে যেতে হতো সুনামগঞ্জ সদর থানায়। এ এলাকার কোথাও একটি ঘটনা ঘটলে সদর থানা থেকে পুলিশ আসতে-আসতে বিরাট আকারের ক্ষতি ও আইন-শৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতি ঘটতো। বর্তমানে সেই পরিস্থিতি নেই। তবে এখনও অনেক জনবল সংকট রয়েছে এ থানায়, নতুন ভবনটি নির্মাণ কাজ শেষ হলে জনবল সংকট থাকবে না বলে জানান পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। ভবনের নির্মান কাজ এগিয়ে চললেও ডিজাইন রিভাইস করার কারণে আরও ৪০ লক্ষ টাকা চেয়েছে গণপূর্ত অধিদপ্তর।
সুনামগঞ্জ জেলা গণপূর্ত অধিদপ্তর সূত্রে জানান যায়, গত ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সারা বাংলাদেশের ১০১টি জরাজীর্ণ থানা ভবন টাইপ প্ল্যানে নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় গণপূর্ত অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জ এলাকার তেঘরিয়া গ্রামের পাশে ও শান্তিগঞ্জ মৎস্য হ্যাচারীর পশ্চিমে সুনামগঞ্জ-সিলেট মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে ১ একর জায়গার মধ্যে ৬ কোটি ৮২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৬ তলা ফাউন্ডেশনের ৪ তলা ভবন গত ২০১৫ সালের ২৬ এপ্রিল ভবনটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। ভবনটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন প্রশাসনিক ভবনটির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। শ্রমিকরা ভবনের টাইলস, থাই, ও রং করার কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। সীমানা প্রাচীরটিও নিমার্ণ কাজ শেষের দিকে। শুধু ভবনের পাশে মাটি ভরাট ও মেইন রাস্তার কাজটি বাকি রয়েছে। ভবনটির ১ম তলা ও ২য় তলা হচ্ছে অফিসার ইনচার্জ ও এসআইদের অফিস, হাজত খানা ও একটি হল রুম, ৩য় তলায় নির্মাণ করা হয়েছে অফিসার ইনচার্জ-এর থাকার কোয়াটার ও এসআইদের থাকার কোয়াটার, ৪র্থ তলায় নির্মাণ করা হয়েছে মহিলা পুলিশ ও কনস্টেবলদের থাকার ব্যারাক। ৪ তলার এ ভবনের প্রতিটি তলার মেজেতে লাগানো হয়েছে টাইলস। চলছে বিদ্যুৎ লাইনের ওয়ারিং এর কাজও।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আবুজাফর সিদ্দিক এ প্রতিবেদককে জানান, ভবনের কাজটি অনেক আগেই শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ডিজাইন রিভাইস দেওয়ার ও নতুন নতুন কিছু কাজ যোগ হওয়ায় কাজটি শেষ করতে বিলম্ভ হচ্ছে। যেমন, ভবনের চারদিকে মাটি ভরাটের কাজটি ধরা ছিল না ও মূল রাস্তাটিও ছিল না। আমরা মাটি ভরাটসহ অন্যান্য কাজের জন্য আরও ৪০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ চেয়েছি। যদি ডিসেম্বরের মধ্যে বরাদ্দটি আসে তা হলে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসের মধ্যেই কাজটি হ্যান্ডওভার করতে পারবো। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমাদের ৮৮% কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ২-৩ মাসের মধ্যে বাকি কাজ শেষ করার জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com