মঙ্গলবার, ২৫ Jun ২০২৪, ০১:০৯ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
প্রতিনিধি আবশ্যক: অনলাইন পত্রিকা আমার সুরমা ডটকমের জন্য প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন : ০১৭১৮-৬৮১২৮১, ০১৭৯৮-৬৭৬৩০১
ইস্ট বেঙ্গলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন চট্টগ্রাম আবাহনী

ইস্ট বেঙ্গলকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন চট্টগ্রাম আবাহনী

sports_101984আমার সুরমা ডটকম : শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে শক্তিশালী ভারতীয় ক্লাব ইস্ট বেঙ্গলকে ৩-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী। আয়োজক হিসেবে সফলই চট্টগ্রাম আবাহনী। সফল আয়োজন, সঙ্গে শিরোপাও করায়ত্ত করল তারা। ফাইনালে জয়ের নায়ক নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এলিটা কিংসলে। তিনি করেছেন জোড়া গোল। বাকিটা হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস। এই গোলের যোগানদাতা আবার কিংসলেই। তুমুল উত্তেজনা ছিল প্রথম থেকেই। তবে প্রথম লিড নেয় ভারতীয় ক্লাব ইস্ট বেঙ্গল। ১১ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে গোল করে সফরকারীরা। আবাহনীর বক্সে ইস্ট বেঙ্গলের ডিফেন্ডার অভিনব বাগের শট রেজাউল রেজার মাথায় লেগে গতিপথ বদলে জড়ায় জালে। প্রাণপণ ঝাঁপিয়ে পড়েও বলটি রুখতে পারেননি চট্টগ্রাম আবাহনীর গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন। ফলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় পশ্চিম বাংলার ক্লাবটি। এরপর ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠে চট্টগ্রাম আবাহনী। এর মধ্যে কয়েকটি গোলের সুযোগও নষ্ট করে তারা। ৩০ মিনিটে জাহিদের ফ্রিক কিক বাঁক খেয়ে গোলপোস্টে ঢোকার মুহূর্তে ইস্ট বেঙ্গলের গোলরক্ষক দিবেন্দ্যু সরকার কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন। এর মিনিট খানেক পর হেমন্তের দূরপাল্লার তীব্রগতির শট চলে যায় পোস্ট কাপিয়ে। ৩৫ মিনিটে আবাহনীর মিঠুন কর্নার করেন। প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডারের মাথায় লেগে সেই বল চলে যায় হেমন্তর পায়ে। তার গড়ানো শটটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে গোল শোধের সুযোগ হারায় চট্টলার দলটি। এর মিনিট আটেক পর ইস্ট বেঙ্গলের সীমানার বা প্রান্তে বল পান জাহিদ। তিনি ডান পায়ের বাঁক খাওয়ানো শট নেন। সেটা দিব্যেন্দু কোনমতে ঠেকিয়ে রক্ষা করেন দলকে। তবে প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে পাল্টা আক্রমণে চট্টগ্রাম আবাহনীকে স্বস্তি উপহার দেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এলিটা কিংসলে। বা প্রান্ত থেকে মিঠুনের বাঁকানো ক্রসে দুর্দান্ত হেড লক্ষ্যভেদ করেন কিংসলে। উল্লাসে কেঁপে ওঠে গ্যালারি। ১-১ ব্যবধানে সমতা আনে স্বাগতিক শিবির। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই আক্রমণে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। তার ফলও তারা পেয়ে যায় ৫৪ মিনিটে। ডান প্রান্ত থেকে জাহিদের গড়ানো ফ্রি কিকে গোল করে দলকে ২-১ ব্যবধানে লিড এনে দেন এলিটা কিংসলে। এর মিনিট দুয়েক পর আবারো স্বাগতিক শিবিরে উল্লাস। এলিটার লম্বা পাসে গোল করেন হেমন্ত। ফলে চট্টগ্রাম আবাহনী  ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায়।
শেষ পর্যন্ত গোল শোধের জন্য অনেক চেষ্টাই করেছে ইস্ট বেঙ্গল। কিন্তু আর সম্ভব হয়নি। আর তাই শেষ বাঁশি বাজার পর শিরোপা জয়ের উল্লাসে ফেটে পড়ে চট্টগ্রাম আবাহনী শিবির। গ্যালারিও তখন উৎসবে মাতোয়ারা। বিকেলের বৃষ্টিতে উপেক্ষা করেই খেলা দেখতে আসেন হাজার হাজার ফুটবলপ্রেমী। স্টেডিয়ামের প্রতিটি আসন ম্যাচ শুরুর আগেই পূর্ণ হয়ে ওঠে। ঢাক-ঢোক পিটিয়ে করতালিতে শিরোপার প্রত্যাশায় মেতে ওঠেন দর্শকরা। শিরোপা প্রত্যাশী এসব দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণ করতে মোটেই ভুল করেননি ফুটবল জাদুকররা। এ ম্যাচে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে হারিয়ে শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ দেয় চট্টগ্রাম আবাহনী। এই জয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চট্টগ্রাম আবাহনীর খোলোয়াড় ও দলের সকল সদস্যবৃন্দকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

© All rights reserved © 2017-2019 AmarSurma.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com